পর্যটনের নতুন ডেস্টিনেশন ‘ ঝান্ডি ‘

IMG-20180822-WA0001 (1)

জলপাইগুড়ি, ২২ অগাস্ট : কোলকাতা থেকে যে কোনও ট্রেনে এনজেপি নেমে ভাড়া করা গাড়িতেও যেতে পারেন, এতে খরচ বেশী।সবচেয়ে ভাল হয় কোলকাতা থেকে কাঞ্চনকন্যা ট্রেনে চেপে নিউ মাল জংশনে নেমে পড়ুন।এখান থেকে গাড়ি নিয়ে মালবাজারের গুরজংঝোড়া ও আপার ফাগু চা বাগান দিয়ে কালিম্পং জেলার গোরুবাথান হয়ে প্রায় ৬৫০০ ফুট উচ্চতায় ঝান্ডি ( পাহাড়ের উচু জায়গা) য় চলে আসুন।এখানে ঝান্ডি ইকো হাট রয়েছে।

ঝান্ডিতে প্রায় ১২০০-১৫০০ টাকা থেকে ২৫০০-৩৫০০ টাকা করে ঘর বা কটেজ ভাড়া মিলবে।খাওয়া আলাদা।
ঝান্ডিতে জিও নেটওয়ার্ক নেই।বিএসএনএল,ভোদা,এয়ারটেল রুমে কোথাও কোথাই পেয়ে যাবেন,তা না হলে রুমের বাইরে গিয়ে নেটওয়ার্ক পেয়ে যাবেন।
ঝান্ডিতে দোকান বাজার কিছুই নেই।নিজের প্রয়োজনীয় সামগ্রী নিজেকেই মালবাজার থেকে আনতে হবে।

ঝান্ডি থেকে ভাড়া গাড়িতে করে লাভা হয়ে আলগাড়ার রাস্তা দিয়ে ৮২০০ ফুট উচ্চতায় পৌছে যাবেন পাহাড়ী গ্রাম রিশপে।রিশপেও নেটওয়ার্ক সমস্যা থাকলেও জিও কাজ করে অন্য নেটওয়ার্কের বাইরে।রিশপে বাজার হাট বলতে কিছুই নেই।তবে যে গাড়ি রিশপে আপনাকে পৌছে দেবে সেই গাড়ি রাতে না থাকলে রিশপের সিন্ডিকেট থেকে আগের দিন পুরো ভাড়া দিয়ে স্লীপ নিয়ে বুকিং করে নেবেন।কখন বের হবেন তা জানিয়ে দিলে আপনার হোটেল বা কটেজের সামনে নির্দিষ্ট সময়ে গাড়ি চলে আসবে।
মনে রাখবেন এই সমস্ত পাহাড়ী এলাকায় সবকিছুর দাম বেশী।কারন পরিবহন খরচ বেশী হওয়ায় সবকিছুর দাম বেশী। এখানেও নিজের প্রয়োজনীয় সামগ্রী সাথে নিয়ে আসবেন।ওষুধ নিয়ে আসতে ভুল করবেন না।
জল খরচ করুন ভেবে চিনতে।ঝান্ডিতে জলের সমস্যা থাকলেও রিশপে নেই।ঝান্ডি, রিশপ সুউচ্চ পাহাড়ী এলাকায় থাকার জন্য দিন শেষ হয় গরম কালে প্রায় সাড়ে ছটায়,সকাল হয় ভোর চারটের কিছু পরে।এই দুই জায়গায় খাওয়ার চাইতে গাড়ির খরচ বেশী,শেয়ারের কোনও গাড়ি পাবেন না,ভাড়ার গাড়ি নিতে হবে। (এনএ)

Please follow and like us: